1. ashik@amaderbanglarsangbad.com : Staf Reporter : Staf Reporter
  2. akhikbd@amaderbanglarsangbad.com : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. babul6568@gmail.com : অনলাইন ডেক্স : অনলাইন ডেক্স
  4. admin@amaderbanglarsangbad.com : belal :
  5. lima@webcodelist.com : Khadizatul kobra Lima : Khadizatul kobra Lima
  6. rkp.jahan@gmail.com : Staf Reporter : Staf Reporter
  7. abc@solarzonebd.com : Staf Reporter : Staf Reporter
  8. tahershaghata@gmail.com : Abu Taher : Abu Taher
পলাশবাড়ীতে পেশাদার সাংবাদিকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ - আমাদের বাংলার সংবাদ




পলাশবাড়ীতে পেশাদার সাংবাদিকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ

  • সংবাদ সময় : Friday, 9 October, 2020
  • ৩৭ বার দেখা হয়েছে

আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি:- গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় ৩টি প্রেসক্লাব ও ১টি রিপোর্টার ইউনিটির সকল সাংবাদিকদের একত্রিত করার লক্ষে সকল সংগঠনের সিনিয়র সাংবাদিকদের সমন্বয়ে ৯ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করে দেন বাংলাদেশ কৃষকলীগ কেন্দ্রেীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক ও গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্ল্যাপুর) আসনের এমপি এ্যাড: উম্মে কুলসুম স্মৃতি। উক্ত কমিটির সকল সদস্যদের সিদ্ধান্ত ক্রমে আগামী ৩১ ডিসেম্বর-২০২০ ইং তারিখের মধ্যে পেশাদার সকল সাংবাদিকদের তালিকা প্রস্তুত পুর্বক পুনাঙ্গ কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। এরপর থেকে পলাশবাড়ী উপজেলার পেশাদার সাংবাদিকদের মাঝে একতার প্রতিফলন লক্ষ করা যায়। স্বাধীনতার ৪৯ বছর পর উপজেলার সকল সাংবাদিকদের এক প্লাট ফরমে আনায় এমপিকে সাধুবাদ জানান বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তাবৃন্দ।

সম্প্রতি এমপির নির্দেশ উপেক্ষা করে আহবায়ক কমিটির সভাপতি রবিউল ইসলাম পাতা ও সদস্য সচিব নুরুল ইসলাম ৯ সদস্য বিশিষ্ট উপ-কমিটির ৭ জনকে বাদ দিয়ে তাদের একক সিদ্ধান্তে নতুন সদস্য সংগ্রহের জন্য ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি উপ-কমিটি গঠন করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এদিকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর থেকেই আহবায়ক কমিটির সকল সদস্যদের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

উল্লেখ্য, মাননীয় সংসদ সদস্যের গঠিত কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ডা: আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মনজুর কাদির মুকুল, রফিকুল ইসলাম, মাসুদার রহমান মাসুদ, সিরাজুল ইসলাম রতন ও আশরাফুল ইসলাম বলেন, আহবায়ক ও সদস্য সচিব কাউকে কিছু না জানিয়ে একক সিদ্ধান্ত গ্রহন করায় সংসদ সদস্যসহ সকল সাংবাদিককে অপমান করা হয়েছে। আমরা উল্লেখিত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানোর পাশাপাশি মাননীয় সংসদ সদস্যের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সিনিয়র সাংবাদিক ডা: আবুল কালাম আজাদ বলেন- আমরা মাননীয় সংসদ সদস্যের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে একমত পোষন করেছিলাম কিন্তু আহবায়ক কমিটির কোন সিদ্ধান্ত না নিয়ে উপ কমিটি গঠন করা উচিত হয়নি। এটা সংগঠনকে কুক্ষিগত করার একটা অপপ্রয়াস।আমরা সংসদ সদস্যেও সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় থাকবো দেখি তিনি কি করেন।

সিনিয়র সাংবাদিক মনজুর কাদির মুকুল বলেন, মাননীয় সংসদ সদস্যের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে এই উপ- কমিটির অর্থ হচ্ছে আবারো সাংবাদিকদের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা। তিনি মাননীয় সংসদ সদস্যের সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম জানান, একটি মানুষের জন্য সাংবাদিকদের মধ্যে কোন সমঝোতা সম্ভব হচ্ছে না। আহবায়ক কমিটির কোন সিদ্ধান্ত না নিয়ে উপ-কমিটি গঠন করা মোটেই উচিত হয়নি। আমি ব্যক্তিগত ভাবে মাননীয় এমপির হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম বলেন, প্রেসক্লাবটা মাজার বানিয়ে রেখেছে। একজন ব্যক্তির কারনে পলাশবাড়ীর গোটা সাংবাদিক সমাজ আজ এলোমেলো। এমপির সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করার সাহস তিনি কি করে রাখেন।

সিনিয়র সাংবাদিক সিরাজুল ইসলাম রতন বলেন, সাংবাদিকদের একত্রিত হওয়ার কোন বিকল্প নেই।১৮ বছর পর এমপির হস্তক্ষেপে যে আহবায়ক কমিটি গঠন হয়েছিলো তা সত্যিই প্রশংসনীয় তিনি ও এমপির হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সাংবাদিক আসাদুজ্জামান রুবেল বলেন, মাননীয় সংসদ সদস্যের অনুমোদিত কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক সদস্য সংগ্রহের জন্য উপ কমিটি গঠন উচিত ছিলো।তাদের মনগড়া কোন কমিটি আমরা মানতে রাজি না।তাদেও মনগড়া মত যদি সব হয় তাহলে এত নাটকিয়তার কি দরকার ছিলো। তিনি এমপির হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সাংবাদিক রবিউল ইসলাম রুবেল বলেন, এমপি উপজেলার পেশাদার সাংবাদিকদের নিয়ে যে কমিটি গঠন করেছিলো উপ-কমিটি গঠন করার আগে অবশ্যই তাদের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা উচিত ছিলো।

সাংবাদিক আবু হানিফ বায়েজিত শাকিল বলেন-এমপি মহোদয় যে কমিটি করেছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয় তার দেয়া আহবায়ক কমিটির সিদ্ধান্ত না নিয়ে সদস্য সংগ্রহ উপ কমিটি অবৈধ।পেশি শক্তি বলে যা করা যায় তা বেশি দিন স্থায়ী হয় না।

সাংবাদিক হাসিবুর রহমান স্বপন জানান, পলাশবাড়ী প্রেসক্লাবের বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সদস্য আহবান করা হয়েছে। সেখানে একটি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে এমপি মহোদয় কর্তৃক গঠিত আহবায়ক কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হলে ভালো হতো।

সাংবাদিক ফজলুল হক দুদু বলেন, উপ-কমিটির মাধ্যমে সদস্য সংগ্রহ করে আহবায়ক কমিটিতে হস্তান্তর করা হবে। পরে আহবায়ক কমিটি তা যাচাই বাছাই করবে। আহবায়ক কমিটিকে না জানিয়ে উপ-কমিটি গঠন করার কেন হলো জানতে চাইলে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেন নাই।

সাংবাদিক আশরাফুজ্জামান বলেন -এমপি মহোদয়ের কমিটি উপেক্ষা করার কোন সুযোগ নেই।

সাংবাদিক হামিদুল ইসলাম বলেন -জটিলতা নিরসন কল্পে এমপি মহোদয়ের হস্তক্ষেপ জরুরী।

সাংবাদিক আশরাফুল ইসলাম বলেন, রবিউল ইসলাম পাতাকে বাদ দিলেই কেবল সকল সমস্যার সমাধান হবে। জটিলতা নিরসন কল্পে এমপি মহোদয়ের হস্তক্ষেপ জরুরী।

সাংবাদিক নুর মহব্বত জানান, জটিলতা নিরসন কল্পে এমপি মহোদয়ের হস্তক্ষেপ জরুরী।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ