1. ashik@amaderbanglarsangbad.com : Staf Reporter : Staf Reporter
  2. akhikbd@amaderbanglarsangbad.com : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. babul6568@gmail.com : অনলাইন ডেক্স : অনলাইন ডেক্স
  4. admin@amaderbanglarsangbad.com : belal :
  5. sv.e.t.a.m.ahovits.k.aya.8.2@gmail.com : danniellearchdal :
  6. lima@webcodelist.com : Khadizatul kobra Lima : Khadizatul kobra Lima
  7. rkp.jahan@gmail.com : Staf Reporter : Staf Reporter
  8. abc@solarzonebd.com : Staf Reporter : Staf Reporter
  9. tahershaghata@gmail.com : Abu Taher : Abu Taher
সাদুল্লাপুরে ইউপি সদস্য শাশুরী-জামাইয়ের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্ণীতির অভিযোগ - আমাদের বাংলার সংবাদ




সাদুল্লাপুরে ইউপি সদস্য শাশুরী-জামাইয়ের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্ণীতির অভিযোগ

  • সংবাদ সময় : Saturday, 14 November, 2020
  • ৪৭ বার দেখা হয়েছে

সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি: গাইববান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যা লাইলী বেগম ও তার মেয়ে জামাই আতাউর রহমানের বিরুদ্ধে সিমাহীন অনিয়ম-দুর্ণীতির অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে ভুক্তভোগিরা সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে।

 

 

দাখিলকৃত অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের (৪,৫,৬) নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্যা লাইলী বেগম ও তার মেয়ে জামাই ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য আতাউর রহমান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্ণীতির সঙ্গে জড়িত। তারা কোন কিছু তোয়াক্কা না করে এলাকার ভিক্ষুকসহ অসহায় মানুষদের বিভিন্ন সুবিধাদি দেওয়ার নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

 

 

অভিযুক্ত লাইলী বেগম ও তার জামাই আতাউর রহমান ইতোমধ্যে আরাজী ছান্দিয়াপুর গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী জামিলা বেগমকে আরইআরএমপি প্রকল্পে কর্মী নিয়োগ দেওয়ার নামে ৪৬ হাজার টাকা, বয়স্ক/বিধবা ভাতা কার্ডের নামে জোহরা বেগম ও জরিনা বেগমের ৯ হাজার টাকা গ্রহন করে। একই সঙ্গে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি কার্ডের জন্য ছালেহা বেগমের ৪ হাজার, নাজমা বেগমের ১ হাজার, ভিজিডি কার্ডের জন্য শেফালী বেগমের ৪ হাজার ও ঘর দেওয়ার কথা বলে কুলছুম বেগমের নিকট ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। ভূয়া আশ্বাস দিয়ে উপকারভোগিদের নিকট ওইসব টাকা গ্রহন করা হলেও অদ্যবদিও তাদের কোন সুবিধাদি দেয়নি কথিত লাইলী ও আতাউর। এরপর ভুক্তভোগিরা প্রদেয় টাকা ফেরত চাইলে তাদেরকে বিভিন্ন হুমকি প্রদর্শন করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

 

শুধু তায় নয়, দরিদ্র পরিবারের গৃহবধূ ফরিদা, সাজিনা, রহিমন ও পোষাগীসহ আরো অনেকে নামে ভিজিডি কার্ড ইস্যুকরে সমুদয় চাল লাইলী বেগম নিজেই উত্তোলন করে তা আতœশাৎ করে আসছে। অথচ ওইসব ভিজিডি কার্ডধারী জানেন না তাদের নামে কার্ড রয়েছে কিংবা চাল উত্তোলন করা হচ্ছে।

 

 

ভুক্তভোগিরা জানান, ইউপি সদস্য লাইলী বেগম ও তার মেয়ে জামাই আতাউর রহমান ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে এলাকায় দাদন ব্যবসাসহ সিমাহীন অনিয়ম দুর্ণীতে তুঙ্গে উঠেছে। অন্যায়-দুর্ণীতির বিষয়ে কেউ প্রতিবাদ করলে তাদের উপর নেমে আসে অমানসিক নির্যাতন। ফলে লাইলী ও আতাউর রহমানের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খোলার সাহস পায়না। এসব দুর্ণীতি রোধ কল্পে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছে ভোক্তভোগি মানুষরা।

 

 

এসব বিষয় অস্বীকার করে ইউপি সদস্য লাইলী বেগম ও আতাউর রহমান বলেন, সামাজিকভাবে আমাদের হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য ইউএনও’র নিকট মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে।

 

 

সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. নবীনেওয়াজ বলেন, ভুক্তভোগিদের অভিযোগপত্রটি এখনো দেখা হয়নি। দেখে ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে।

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ